vasa class eleven bengali

ভারতের ভাষা পরিবার ও বাংলা ভাষা থেকে এখানে বিবিধ নোট প্রদান করা হলো। শিক্ষার্থীরা নির্দিষ্ট লিংকে টাচ/ক্লিক করে সেই বিষয়ের নোটগুলি দেখতে পারবে।

একাদশ শ্রেণির বাংলা বিষয়ে ভাষা একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। এই ভাষা অংশের একটি বিভাগ হলো বিশ্বের ভাষা ও ভাষা পরিবার। একাদশ শ্রেণির বার্ষিক পরীক্ষায় তোমাদের ভাষা থেকে MCQ, SAQ ও ৫ নম্বরের বড়ো প্রশ্নের উত্তর লিখতে হবে। একাদশ শ্রেণিতে বাংলা বিষয়ে ভালো ফলাফল করতে এই অংশটি খুব ভালো করে তৈরি করতে হবে। শিক্ষার্থীদের সুবিধার্থে এখানে বিশ্বের ভাষা ও ভাষা পরিবার থেকে গুরুত্বপূর্ণ কিছু প্রশ্ন ও তাদের উত্তর প্রদান করা হলো। 

গুরুত্বপূর্ণ কিছু MCQ প্রশ্নের উত্তরঃ

) ভারতের ভাষাগুলিকে ভাগ করা হয়চারটি ভাষাবংশে

) ‘Linguistic Survey of India 1903-1928’ এর মূল সম্পাদক ছিলেনজর্জ গ্রিয়ার্সন

) ‘ভাষা সমীক্ষাঅনুসারে ভারতে প্রচলিত ভাষার সংখ্যা১৭৯টি

) ভারতে উপভাষা প্রচলিত রয়েছে৫৪৪টি

) ১৯৬১ খ্রিঃ সমীক্ষা অনুসারে ভারতে মাতৃভাষা রয়েছে১৬৫২টি

) ভারতে অবর্গীভূত ভাষার সংখ্যা৫৩০টি

) ভারতীয় জনসমূহের প্রাচীনতম স্তর হলনেগ্রিটো

) ভারতে অস্ট্রিক ভাষাবংশের ভাষা রয়েছে৬৫টি

) ভারতের প্রাচীনতম ভাষাগোষ্ঠী হলঅস্ট্রিক

১০) প্রত্নঅস্ট্রালদের ভাষা ছিলঅস্ট্রিক

১১) অস্ট্রিক ভাষাবংশ বিভক্তদুটি ভাষা বংশে

১২) মেলানেশীয় ভাষাগোষ্ঠী দেখা যায়ফিজিদ্বীপে

১৩) অস্ট্রোএশিয়াটিকের অন্তর্ভুক্ত সাঁওতালি ভাষা যে ধারার অন্তর্গতপশ্চিমা

১৪) অস্ট্রোএশিয়াটিকের পশ্চিমা ধারাটিতে ভাষা আছে প্রায় ৫৮টি

১৫) সাঁওতালি ভাষার লিপির নামঅলচিকি

১৬) অলচিকি লিপির উদ্ভাবক হলেনরঘুনাথ মুর্মু

১৭) মুন্ডারি এনসাইক্লোপিডিয়া বিভক্ত১৩টি খন্ডে

১৮) মন্‌খমের মধ্যে ভাষা রয়েছে ৭টি

১৯) দ্রাবিড় ভাষাবংশ ভাষাভাষীর দিক দিয়েদ্বিতীয় বৃহত্তম

২০) হরপ্পা ও মহেনজোদারো অবস্থিত ভারতেরউত্তরপশ্চিম সীমান্তে

২১) দ্রাবিড় ভাষাবংশের প্রধান ভাষাতামিল

২২) দ্রাবিড় ভাষাবংশের অপর একটি ভাষাতেলেগু

২৩) সিন্ধু সভ্যতা আসলেদ্রাবিড় সভ্যতার দান

২৪) ওরাঁও ভাষা ব্যবহার করা হয়বিহার, ওড়িশা ও মধ্যপ্রদেশের সীমান্তে

২৫) মধ্যদেশীয় শাখার অন্তর্ভুক্ত ভাষার সংখ্যাপ্রায় ৭টি

২৬) গোন্দ জনজাতীর ভাষা হলগোন্ডী

২৭) তামিল ভাষায় ব্যবহৃত ব্যঞ্জনবর্ণ ও স্বরবর্ণের সংখ্যা১৮টি ও ১২টি

২৮) দ্রাবিড় ভাষার লিপির উদ্ভব ঘটেছেব্রাহ্মী লিপি থেকে

২৯) কর্ণাটক রাজ্যের প্রধান ভাষাকন্নড়

৩০) প্রাচীনতম দ্রাবিড়ীয় শিলালিপি লেখা হয়েছিলকন্নড় লিপিতে

৩১) তেলেগু ভাষা প্রধানত প্রচলিতঅন্ধ্রপ্রদেশে

৩২) তেলেগু ভাষার বৈচিত্র আঞ্চলিকভেদেচার প্রকারের

৩৩) দ্রাবিড় ভাষাবংশের মধ্যে ভারতে সর্বাধিক প্রচলিততেলেগু

৩৪) মঙ্গলয়েডরা ভারতে প্রবেশ করেনআর্যদের পূর্বে

৩৫) মঙ্গলয়েডরা কথা বলতোভোটচিনা ভাষায়

৩৬) ভোটবর্মি ভাষা প্রচলিত ভারতেরহিমালয় অঞ্চলে

৩৭) ‘লুঙ্গিশব্দটি বাংলা ভাষায় এসেছেবর্মি ভাষা থেকে

৩৮) ভারতীয় আর্য ভাষা এসেছে যে ভাষাগোষ্ঠী থেকেইন্দোইউরোপীয়

৩৯) প্রচীন ভারতীয় আর্য ভাষার প্রাচীনতম নিদর্শন হলঋকবেদ

৪০) ‘অষ্টাধ্যায়ী’ ব্যাকরণ গ্রন্থটি লিখেছিলেনপাণিনি

৪১) প্রাচীন ভারতীয় আর্য ভাষার অপর নামবৈদিক ভাষা

৪২) প্রাকৃত ভাষার মূল উপাদান আছেবৈদিক সংস্কৃত ভাষাতে

৪৩) প্রাকৃত ভাষা বা মধ্য ভারতীয় আর্য ভাষার সময়সীমা৬০০খ্রিঃ পূঃথেকে ৯০০ খ্রিঃ

৪৪)  মধ্যভারতীয় আর্য ভাষার প্রাচীনতম নিদর্শন দেখা যায়অশোকের শিলালিপিতে

৪৫) গৌতম বুদ্ধ ছিলেনমগধের লোক

৪৬) মধ্য ভারতীয় আর্য ভাষার ব্যাপ্তিদেড় হাজার বছর

৪৭) মাগধী প্রাকৃত ভাষা থেকে জন্ম হয়মাগধী অপভ্রংশ অবহট্‌ঠ

৪৮) নব্যভারতীয় আর্য ভাষার বিস্তার৯০০খ্রিঃ থেকে বর্তমান সময় পর্যন্ত

৪৯) সিন্ধি ভাষা ভারতেকচ্ছ অঞ্চলে প্রচলিত ছিল

৫০) গ্রন্থসাহিব গ্রন্থটি লেখা হয়েছেপাঞ্জাবি ভাষার গুরমুখী লিপিতে

৫১) নেপালি ভাষার উদ্ভব ঘটেছেশৌরসেনী প্রাঋতঅপভ্রংশ থেকে

৫২) বাংলা ভাষার উদ্ভবমাগধী অপভ্রংশ থেকে

৫৩) বাংলা ভাষার জন্ম হয়আনুমানিক ৯০০খ্রিঃ

৫৪) প্রাচীন বাংলার সময়সীমা হল৯০০ থেকে ১৩৫০ খ্রিঃ

৫৫) আদিমধ্য বাংলার সময়সীমা হল১৩৫০ খ্রিঃ থেকে ১৫০০ খ্রিঃ

৫৬) মধ্য বাংলার সময়সীমা হল১৩৫০ খ্রিঃ থেকে ১৭৬০ খ্রিঃ

৫৭) প্রাচীন বাংলার নিদর্শন হলচর্যাপদ

৫৮) আদিমধ্য বাংলার নিদর্শন হলশ্রীকৃষ্ণকীর্তণ

৫৯) অন্তমধ্য বাংলার নিদর্শন হলমঙ্গলকাব্য

৬০) সংস্কৃত বাংলা ভাষার অতি অতি অতি অতি অতিবৃদ্ধ পিতামহীকথাটি বলেছেনহরপ্রসাদ শাস্ত্রী

……. শিক্ষালয়ের পক্ষ থেকে কিছু দিন অন্তর অন্তর এমন আরো গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্নের উত্তর প্রদান করা হবে। শিক্ষালয় ওয়েবসাইটের আপডেটগুলি পেতে নিয়মিত ফলো করো শিক্ষালয় ওয়েবসাইটটিকে।

বড়ো প্রশ্নের উত্তরঃ

১) দ্রাবিড় ভাষাবংশের সংক্ষিপ্ত পরিচয় দাও। ৫

উঃ প্রত্ন-অস্ত্রালদের পরবর্তীকালে যে ভূমধ্যসাগরীয় জনগোষ্ঠী ভারতবর্ষে প্রবেশ করেছিল তারা দ্রাবিড় ভাষাবংশের অন্তর্গত। ভারতবর্ষে প্রচলিত ভাষাবংশগুলির মধ্যে দ্রাবিড় ভাষাবংশ দ্বিতীয় স্থান অধিকার করে। আর্যরা ভারতে এসে দ্রাবিড় ভাষাবংশের মানুষদের উত্তরভারত থেকে বিতাড়িত করলে তারা বিন্ধ্য পর্বতের দক্ষিণ অংশে স্থায়ীভাবে বসবাস শুরু করে। তাই দাক্ষিণাত্যের অন্যতম প্রধান ভাষাবংশ হল দ্রাবিড় ভাষাবংশ।

এই ভাষাবংশের অন্তর্গত শাখাগুলি হল-

ক) দক্ষিণী;

খ) উত্তরা;

গ) মধ্যদেশীয়;

ঘ) বিচ্ছিন্ন।

নিম্নে এই শাখাগুলি সম্পর্কে সংক্ষেপে আলোচনা করা হল-

ক) দক্ষিণীঃ

দক্ষিণ ভারতে অধিক প্রচলিত তামিল, তেলেগু, মালায়ালম্‌, কন্নড় প্রভৃতি ভাষাগুলি এই দক্ষিণী শাখার অন্তর্গত। এছাড়াও নীলগিরি পার্বত্য অঞ্চলের টোডাকোটা, মহীশুরের টুলু ভাষাও এই শাখার নিদর্শন।

খ) উত্তরাঃ

দ্রাবিড় ভাষাবংশের উত্তরা শাখার অন্তর্গত ভাষাগুলির মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল পশ্চিমবঙ্গ, বিহার, ওড়িশা ও মধ্যপ্রদেশে প্রচলিত ওরাওঁ ভাষা এবং বাংলা ও ঝাড়খন্ডের রাজমহল পাহাড় সংলগ্ন মালপাহাড়ি ভাষা।

গ) মধ্যদেশীয়ঃ

গোদ জনজাতির ব্যবহৃত ভাষা গোণ্ডী দ্রাবিড় ভাষাবংশের মধ্যদেশীয় শাখার অন্তর্ভুক্ত। এছাড়াও ওড়িশায় প্রচলিত কুই, কোন্দ, খোন্দ ভাষাও এই শাখার নিদর্শন।

ঘ) বিচ্ছিন্নঃ

বর্তমান পাকিস্থানের অন্তর্ভুক্ত বেলুচিস্থানের পার্বত্য অঞ্চলে প্রচলিত ব্রাহুই ভাষা দ্রাবিড় ভাষাবংশের অন্তর্গত।

উপরোক্ত আলোচনার মাধ্যমে আমরা ভারতবর্ষের অন্যতম প্রাচীন দ্রাবিড় ভাষাবংশ সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত ধারণা লাভ করতে পারি।

class eleven questions

ভারতের ভাষা পরিবার ও বাংলা ভাষা থেকে গুরুত্বপূর্ণ কিছু ছোটপ্রশ্নের (MCQ) উত্তর।

উত্তর জানতে এখানে টাচ/ক্লিক করতে হবে

ভারতের ভাষা পরিবার ও বাংলা ভাষা থেকে গুরুত্বপূর্ণ কিছু সংক্ষিপ্ত প্রশ্নের (SAQ) উত্তর।

উত্তর জানতে এখানে টাচ/ক্লিক করতে হবে

মধ্য ভারতীয় আর্য ভাষার কালসীমা উল্লেখ করে৷ এই স্তরের ভাষার সংক্ষিপ্ত বিবরণ দাও৷

উত্তর জানতে এখানে টাচ/ক্লিক করতে হবে

bengali mock test

“ভারত চার ভাষাবংশের দেশ”–এই চার ভাষাবংশের পরিচয় দাও।

উত্তর জানতে এখানে টাচ/ক্লিক করতে হবে

অস্ট্রিক ভাষাবংশের যে কোন একটি ভাষার নাম লেখো। এই ভাষাবংশের সংক্ষিপ্ত পরিচয় দাও।

উত্তর জানতে এখানে টাচ/ক্লিক করতে হবে

সংস্কৃত ভাষাকে কি বাংলা ভাষার জননী বলা যায়?

উত্তর জানতে এখানে টাচ/ক্লিক করতে হবে

online class

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You cannot copy content of this page