মধ্যযুগের বাংলা সমাজ ও সাহিত্যের প্রধান ধারা ।। একাদশ শ্রেণি বাংলা

মধ্যযুগের বাংলা সমাজ ও সাহিত্যের প্রধান ধারা ।। একাদশ শ্রেণি বাংলা

শিক্ষালয় ওয়েবসাইটের পক্ষ থেকে একাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের জন্য মধ্যযুগের বাংলা সমাজ ও সাহিত্যের প্রধান ধারা ।। একাদশ শ্রেণি বাংলা প্রদান করা হলো। একাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীরা এই মধ্যযুগের বাংলা সমাজ ও সাহিত্যের প্রধান ধারা ।। একাদশ শ্রেণি বাংলা পাঠ করে নিম্নে দেওয়া কবিতার প্রশ্নের উত্তরগুলি তৈরি করবে।

শিক্ষালয় ওয়েবসাইটের সকল প্রকার আপডেট লাভ করতে মোবাইল স্ক্রিনের বা’দিকের নিম্নের অংশে থাকা বেল আইকনটিতে (🔔) টাচ করে শিক্ষালয় ওয়েবসাইটের নোটিফিকেশন অন করে রাখুন।

মধ্যযুগের বাংলা সমাজ ও সাহিত্যের প্রধান ধারা ।। একাদশ শ্রেণি বাংলাঃ 

শ্রীকৃষ্ণকীর্তন MCQ প্রশ্ন-উত্তরঃ 

১) সাহিত্যের ইতিহাসে ‘অন্ধকারময় যুগ’ হল- ত্রয়োদশ-চতুর্দশ শতাব্দী

২) ‘মধ্যযুগ’ বলতে বোঝায়- পঞ্চদশ থেকে অষ্টাদশ শতাব্দী

৩) ‘চৈতন্য পর্ব’ নামে অভিহিত- ষোড়শ শতাব্দী

৪) কবি ভারতচন্দ্রের মৃত্যু হয়- ১৭৬০খ্রিঃ

৫) বাংলা সাহিত্যের ‘যুগসন্ধিক্ষণ’ হল- ১৭৬০-১৮০০খ্রিঃ

৬) হিন্দু কবিদের ভাষায় হুসেন শাহ ছিলেন- নৃপতিতিলক

৭) ‘আর্যাসপ্তশতী’ নামক সংস্কৃত কাব্যটির রচয়িতা- গোবর্ধন আচার্য

৮) ইফ্‌তিকারুদ্দিন বিন বখ্‌তিয়ার খিলজির বাংলাদেশ আক্রমণকালে রাজা ছিলেন- লক্ষ্ণণ সেন

৯) বাংলাদেশে তুর্কি আক্রমণ হয়- ১২০৩ খ্রিঃ

১০) বাংলা সাহিত্যের ইতিহাসে ত্রয়োদশ-চতুর্দশ শতাব্দীকে বলা হয়- অন্ধকারময় যুগ

১১) আলাউদ্দিন হুসেন শাহ বাংলার সিঙ্ঘাসনে বসেন- ১৪৯৩ খ্রিঃ

১২) আদি-মধ্যযুগের প্রাথমিক নিদর্শন হল- শ্রীকৃষ্ণকীর্তন

১৩) শ্রীকৃষ্ণকীর্তনের পুঁথিটি আবিষ্কার করেন- বসন্তরঞ্জন রায় বিদ্বদ্বল্লভ

১৪) শ্রীকৃষ্ণকীর্তন কাব্যের পুঁথিটি আবিষ্কৃত হয়েছিল- ১৯০৯ খ্রিঃ

১৫) শ্রীকৃষ্ণকীর্তন কাব্যের পুঁথিটি আবিষ্কৃত হয়- বাঁকুড়া জেলার কাঁকিল্যা গ্রামে

১৬) শ্রীকৃষ্ণকীর্তনের পুঁথিটি প্রকাশিত হয়- বঙ্গীয় সাহিত্য পরিষদ থেকে

১৭) শ্রীকৃষ্ণকীর্তনের পুঁথিটি প্রকাশিত হয়- ১৯১৬ খ্রিঃ

১৮) শ্রীকৃষ্ণকীর্তনের পুঁথিটি প্রকাশিত হয়- বসন্তরঞ্জন রায় বিদ্বদ্বল্লভের সম্পাদনায়

১৯) শ্রীকৃষ্ণকীর্তনের পুঁথিটিতে প্রাপ্ত চিরকূটে নাম পাওয়া যায়- শ্রীকৃষ্ণসন্দর্ভ

২০) শ্রীকৃষ্ণকীর্তন কাব্য রচিত হয়- ১৪৭৩-১৪৮০ খ্রিঃ মধ্যে

২১) শ্রীকৃষ্ণকীর্তন কাব্যটির রচয়িতা- বড়ু চন্ডীদাস

২২) শ্রীকৃষ্ণকীর্তন কাব্যটি যে কটি খন্ডে বিভক্ত- ১৩টি

২৩) শ্রীকৃষ্ণকীর্তন কাব্যের শেষ খন্ডের নাম- রাধাবিরহ

২৪) শ্রীকৃষ্ণকীর্তন কাব্যের প্রধান চরিত্র- কৃষ্ণ

২৫) শ্রীকৃষ্ণকীর্তন কাব্যে যে কাব্যের প্রভাব পরিলক্ষিত হয়- জয়দেবের গীতগোবিন্দ

 

বৈষ্ণব পদাবলি MCQ প্রশ্ন-উত্তরঃ 

১) গীতগোবিন্দম গ্রন্থের রচয়িতা- জয়দেব

২) গীতগোবিন্দম রচিত হয়েছিল- দ্বাদশ শতাব্দীতে

৩) জয়দেব যার রাজসভার কবি ছিলেন- লক্ষ্মণ সেন

৪) চন্ডীদাস হলেন- বিরহের কবি

৫) মোইথিল কোকিল নামে পরিচিত ছিলেন- বিদ্যাপতি

৬) বিদ্যাপতি কূলধর্মে ছিলেন- শৈব

৭) বিদ্যাপতি যে ভাষায় পদ রচনা করেছিলেন- ব্রজবুলি

৮) বিদ্যাপতির একটি অন্যতম গ্রন্থ হল- পুরুষপরীক্ষা

৯) অভিনব জয়দেব নামে পরিচিত ছিলেন- বিদ্যাপতি

১০) ব্রজবুলি যে সকল ভাষার সংমিশ্রণে গড়ে উঠেছিল- বাংলা, মৈথিলি ও অবহট্‌ঠ     

১১) দ্বিতীয় বিদ্যাপতি আখ্যা প্রদান করা হয়েছে- গোবিন্দদাসকে

১২) বিদ্যাপতির ভাবশিষ্য বলা হয়- গোবিন্দদাসকে

১৩) চন্ডীদাসের ভাবশিষ্য বলা হয়- জ্ঞানদাসকে

১৪) জ্ঞানদাস জন্মগ্রহণ করেছিলেন- কাঁদড়া গ্রামে 

১৫) জ্ঞানদাস জন্মগ্রহণ করেন- ষোড়শ শতাব্দীতে 

১৬) শ্রীনিবাস আচার্যের অন্যতম শিষ্য ছিলেন- গোবিন্দদাস 

১৭) সুবৃহৎ বৈষ্ণব সংকলন গ্রন্থ হল- পদকল্পতরু 

১৮) নিত্যানন্দের শিষ্য ছিলেন- বলরাম দাস 

১৯) সঙ্গীতকারক উপাধিপ্রাপ্ত হয়েছেন- বলরাম দাস 

২০) একজন বিশিষ্ট মুসলমান কবি হলেন- সৈয়দ মর্তুজা 

 

চৈতন্য ও চৈতন্য জীবনী কাব্য MCQ প্রশ্ন-উত্তরঃ  

১) শ্রীচৈতন্যদেবের জন্ম হয়েছিল- ১৪৮৬ খ্রিঃ

২) চৈতন্যদেবের মাতার নাম হল- শচীদেবী 

৩) কাটোয়ায় চৈতন্যদেব যার কাছে দীক্ষা গ্রহণ করেছিলেন- কেশবভারতী

৪) গয়ায় চৈতন্যদেব যার কাছে দীক্ষা গ্রহণ করেছিলেন- ঈশ্বরপুরী 

৫) চৈতন্যদেবের মৃত্যু হয়েছিল- ১৫৩৩ খ্রিঃ 

৬) চৈতন্যদেব প্রচার করেছিলেন- ভক্তিধর্ম

৭) যাকে অবলম্বন করে বাংলা সাহিত্যে জীবনী সাহিত্যের সূত্রপাত ঘটে- শ্রীচৈতন্যদেব   

৮) “বাঙালির হীয়া অমিয় মথিয়া নিমাই ধরেছে কায়া” বলেছেন- সত্যেন্দ্রনাথ দত্ত

৯) ‘অমৃতাভ’ কাব্যের রচয়িতা হলেন- নবীনচন্দ্র সেন 

১০) ‘শ্রীচৈতন্যলীলা’ নাটকটির রচয়িতা হলেন- গিরিশ ঘোষ 

১১) ‘চন্ডালোহপি দ্বিজশ্রেষ্ঠ হরিভক্তি পরায়ণ’ কথাটির অর্থ হল- হরিভক্ত চন্ডাল হরিভক্তিহীন দ্বিজের থেকে শ্রেষ্ঠ 

১২) বৈষ্ণব পদাবলী ধারাকে বিভক্ত করা হয়- তিনটি ধারায় (চৈতন্য পূর্ববর্তী, চৈতন্য সমসাময়ীক ও চৈতন্যত্তর) 

১৩) বাংলায় বৈষ্ণব পদাবলী ধারার সূচনা ঘটে- পঞ্চদশ শতাব্দীতে

১৪) বাংলায় বৈষ্ণব পদাবলী ধারার বিকাশ ঘটেছিল- সপ্তদশ শতাব্দীতে

১৫) চৈতন্যদের প্রভাবে বাংলা বৈষ্ণব পদাবলী ধারায় আগমন ঘটে- গৌরাঙ্গ বিষয়ক পদ ও গৌরচন্দ্রিকার 

১৬) মুরারি গুপ্ত রচিত চৈতন্য জীবিনী গ্রন্থের নাম হল- শ্রীশ্রীকৃষ্ণচৈতন্যচরিতামৃতম 

১৭) শ্রীশ্রীকৃষ্ণচৈতন্যচরিতামৃতম গ্রন্থে সর্গ রয়েছে- ৭৮টি

১৮) প্রবোধচন্দ্রোদয় নাটকটির রচয়িতা- কৃষ্ণমিশ্র

১৯) চৈতন্যচন্দ্রোদয় নাটকটির রচয়িতা- কর্ণপুর 

২০) চৈতন্যভাগবত গ্রন্থটির রচয়িতা- বৃন্দাবনদাস

২১) শ্রীচৈতন্যচরিতামৃতম গ্রন্থটির রচয়িতা- কৃষ্ণদাস কবিরাজ 

২২) চৈতন্যলীলার ব্যাস বলা হয়- বৃন্দাবনদাসকে                                                      

২৩) চৈতন্যভাগবত গ্রন্থের পূর্বনাম ছিল- চৈতন্যমঙ্গল 

২৪) লোচনদাস যার শিষ্য ছিলেন- নরহরি সরকার 

২৫) লোচনদাসের চৈতন্যমঙ্গল বিভক্ত- ৪টি খন্ডে 

২৬) কৃষ্ণদাস কবিরাজের গ্রন্থে খন্ড আছে- ৬২টি 

২৭) গৌরাঙ্গবিজয় গ্রন্থটির রচয়িতা হলেন- চূড়ামণি দাস 

২৮) পদকল্পতরু গ্রন্থটির রচয়িতা হলেন- গোকুলানন্দ সেন

২৯) মহাপ্রভুর দাক্ষিণাত্য ও পশ্চিম ভারত ভ্রমণের প্রত্যক্ষদর্শীর বিবরণ পাওয়া যায় যে গ্রন্থে- গোবিন্দদাসের কড়চা 

৩০) রসিকমঙ্গল গ্রন্থটির রচয়িতা হলেন- গোপীবল্লভ দাস 

 

মঙ্গলকাব্য MCQ প্রশ্ন-উত্তরঃ 

১) ‘বারোমাস্যা’ কোন শ্রেণির কাব্যধারার বৈশিষ্ট্য?- মঙ্গলকাব্য 

২) মঙ্গলকাব্যে ‘চৌতিশা’ কী?- বর্ণানুক্রকিম চৌত্রিশ অক্ষরে দেবতার স্তব 

৩) মঙ্গলকাব্যগুলির দ্বিতীয় অংশে বর্ণিত হয়েছে- গ্রন্থ উৎপত্তির কারণ  

৪) বাংলা সাহিত্যের সর্বাপেক্ষা প্রাচীনতম মঙ্গলকাব্য হল- মনসামঙ্গল 

৫) মনসামঙ্গলের দেবী হলেন- মনসা 

৬) মনসামঙ্গলের আদি কবি হলেন- হরিদত্ত 

৭) চৈতন্য পরবর্তী যুগের একজন মনসামঙ্গলকার হলেন- কেতকাদাস ক্ষেমানন্দ

৮) মনসামঙ্গল কাব্যগুলির মধ্যে সব থেকে জনপ্রিয়- পদ্মাপুরাণ 

৯) কবি কেতকাদাস ক্ষেমানন্দের সময়কাল হল- সপ্তদশ শতাব্দী 

১০) চন্ডীমঙ্গল কাব্যধারার আদি কবি হলেন- মানিক দত্ত

১১) চন্ডীমঙ্গল কাব্যধারার শ্রেষ্ঠ কবি হলেন- মুকুন্দ চক্রবর্তী

১২) মুকুন্দ চক্রবর্তীর কাব্যটি যে নামে পরিচিত- অভয়ামঙ্গল

১৩) মুকুন্দ চক্রবর্তীর পিতার নাম ছিল- হৃদয় মিশ্র 

১৪) মুকুন্দরাম যার অত্যাচারে বাস্তুভিটা পরিত্যাগ করে মেদিনীপুরে আসেন- মামুদ শরিফ 

১৫) চন্ডীমঙ্গলের আখেটিক খন্ডের নায়ক হলেন- কালকেতু 

১৬) চন্ডীমনঙ্গলের বণিক খন্ডের নায়ক হল- ধনপতি সদাগর 

১৭) ধর্মমঙ্গল কাব্যধারার আদি কবি হলেন- ময়ুরভট্ট 

১৮) ময়ুরভট্টের ধর্মমঙ্গল কাব্যের নাম- হাকন্দপুরাণ

১৯) ধর্মমঙ্গল কাব্যের সর্বশ্রেষ্ঠ কবি হলেন- ঘনরাম চক্রবর্তী 

২০) অষ্টাদশ শতাব্দীতে মঙ্গলকাব্যের অন্যতম শ্রেষ্ঠ কবি হলেন- ভারতচন্দ্র রায়

২১) কোন কবি ‘রায়গুণাকর’ উপাধি লাভ করেছিলেন?- ভারতচন্দ্র রায়

২২) ভারতচন্দ্র রায়ের পিতার নাম- নরেন্দ্রনারায়ণ রায় 

২৩) ভারতচন্দ্র কোন রাজার পৃষ্ঠপোষকতা লাভ করেছিলেন?- কৃষ্ণচন্দ্র 

২৪) অন্নদামঙ্গল কাব্যটি বিভক্ত- ৩টি খন্ডে

২৫) বিদ্যাসুন্দর আখ্যানের শ্রেষ্ঠ কবি- ভারতচন্দ্র রায় 

২৬) শিবায়ন কাব্যগুলির মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় যার রচনা- রামেশ্বর ভট্টাচার্য 

২৭) ভারতচন্দ্র রায় জন্মগ্রহণ করেছিলেন- পেঁড়ো গ্রামে 

২৮) অন্নদামঙ্গল কাব্যের তৃতীয় অংশে আছে- মানসিংহের কাহিনি  

২৯)  কাশ্মীরের কনি বিলহ্বনের লেখা সংস্কৃত খন্ডকাব্য হল- চৌর পঞ্চাশিকা 

৩০) ‘সূর্যের পাঁচালি’ গ্রন্থটির রচয়িতা হলেন- দ্বিজ কালিদাস 

 

অনুবাদ কাব্য MCQ প্রশ্ন-উত্তরঃ 

১) বাংলা ভাষায় ভাগবত অনুবাদ করেছিলেন- মালাধর বসু

২) মালাধর বসুর ভাগবত অনুবাদের নাম ছিল- শ্রীকৃষ্ণবিজয়

৩) মালাধর বসু উপাধি পান- গুণরাজ খাঁ

৪) মালাধর বসুকে গুণরাজ খাঁ উপাধি প্রদান করেছিলেন- রুক্‌নুদ্দিন বরবক্‌ শাহ

৫) চট্টগ্রামের শাসনকর্তা পরাগল খাঁর পুত্রের নাম- ছুটি খাঁ

৬) বাংলা ভাষায় রামায়ণের প্রথম অনুবাদক হলেন- কৃত্তিবাস ওঝা

৭) কৃত্তিবাস ওঝা জন্মগ্রহণ করেছিলেন- নদীয়া জেলার ফুলিয়া গ্রামে

৮) কৃত্তিবাস রচিত রামায়ণ যে নামে পরিচিত- শ্রীরাম পাঁচালী

৯) বাংলায় মহাভারত রচনা শুরু হয়েছিল- আনুমানিক ষোড়শ শতাব্দীতে

১০) ‘পরাগলী মহাভারত’ নামে মহাভারত অনুবাদ করেন- কবীন্দ্র পরমেশ্বর দাস

১১) জৈমিনি মহাভারতের অনুবাদ করেন- শ্রীকর নন্দী

১২) শ্রীকর নন্দী মহাভারতের যে পর্বের বিস্তৃত অনুবাদ করেছিলেন- অশ্বমেধ

১৩) বাংলা ভাষায় মহাভারতের শ্রেষ্ঠ অনুবাদক- কাশীরাম দাস

১৪) কাশীরাম দাসের পিতার নাম ছিল- কমলাকান্ত দাস

১৫) কাশীরাম দাস জন্মগ্রহণ করেছিলেন- বর্ধমানের কাটোয়া অঞ্চলের সিঙ্গি গ্রামে

১৬) কাশীরাম দাস মূল মহাভারতের যে’কটি খন্ড অনুবাদ করেছিলেন- ৪টি পর্ব

১৭) ভাগবতের যে দুটি স্কন্ধ অবলম্বনে ‘শ্রীকৃষ্ণবিজয়’ রচিত হয়- দশম ও একাদশ

১৮) চৈতন্যমঙ্গলের রচয়িতা হলেন- জয়ানন্দ

১৯) ‘শ্রীকৃষ্ণবিজয়’ কাব্যটি রচিত হয়- ১৪৭৩ থেকে ১৪৮০খ্রিঃ মধ্যে

২০) মালাধর বসুর জন্মস্থান হল- বর্ধমানের কুলীন গ্রামে

 

ইসলামীয় ধারা MCQ প্রশ্ন-উত্তরঃ

১) রোসাঙদের রাজবংশ হল- মগ

২) রোসাঙদের মাতৃভাষা হল- আরাকান 

৩) হুসেন শাহ চট্টগ্রাম জয় করেছিলেন- পঞ্চদশ শতাব্দীর সূচনায় 

৪) আরাকান রাজসভার একজন বিশিষ্ট কবি হলেন- দৌলত কাজি 

৫) বাংলাদেশে স্বাধীন নাবাবী আমল শুরু হয়েছিল যে শতাব্দীতে- অষ্টাদশ 

৬) সত্যনারায়ণ পাঁচালি রচনা করেছিলেন- ফৈজুল্লা 

 

শাক্ত পদাবলি MCQ প্রশ্ন-উত্তরঃ 

১) ঔরঙজেবের মৃত্যু হয়- ১৭০৭ খ্রিঃ 

২) যে শাক্তকবি ‘কবিরঞ্জন’ নামে প্রসিদ্ধ- রামপ্রসাদ সেন 

৩) রামপ্রদাস সেনের জন্ম হয়েছিল- আনুমানিক ১৭২০ খ্রিঃ

৪) রামপ্রসাদ সেনের জন্ম হয়েছিল যে গ্রামে- কুমারহট্ট 

৫) কুমারহট্ট গ্রামটি যে জেলায় অবস্থিত- চব্বিশ পরগণা 

৬) রামপ্রসাদ সেনের পিতার নাম ছিল- রামরাম সেন 

৭) রামপ্রসাদ সেন যে রাজার পৃষ্ঠপোষকতা লাভ করেছিলেন- রাজা কৃষ্ণচন্দ্র 

৮) বিদ্যাসুন্দর কাব্যটি রচনা করেছেন- ভারতচন্দ্র / রামপ্রসাদ সেন (দুজনেই পৃথকভাবে) 

৯) শাক্তপদাবলীর একটি বিশেষ পর্যায় হল- বিজয়া 

১০) কমলাকান্ত ভট্টাচার্যের জন্ম হয়েছিল- ১৭৭২ খ্রিঃ

১১) কমলাকান্ত ভট্টাচার্যের মৃত্যু হয়েছিল- ১৮২১ খ্রিঃ

১২) ‘মা আমায় ঘুরাবে কত’ গানটি রচনা করেছেন- রামপ্রসাদ সেন 

১৩) ‘আসার আশা ভবে আসা’ গানটি রচনা করেছেন- রামপ্রসাদ সেন

১৪) ‘মজিল মন ভ্রমরা’ গানটি রচনা করেছেন- কমলাকান্ত ভট্টাচার্য 

১৫) ‘ওরে নবমী নিশি, না হইও রে অবসান’ গানটি রচনা করেছেন- কমলাকান্ত ভট্টাচার্য 

১৬) কমলাকান্ত ভট্টাচার্যের বিখ্যাত তান্ত্রিক কবিতাটি হল- সাধকরঞ্জন 

নিম্নের PDF MCQ প্রশ্ন-উত্তরগুলির লিঙ্ক শুধুমাত্র শিক্ষালয় ওয়েবসাইটের শিক্ষার্থীদের জন্যঃ 

শ্রীকৃষ্ণকীর্তন MCQ প্রশ্ন-উত্তর সেট ১

উত্তর দেখতে এই লিঙ্কে ক্লিক/টাচ করতে হবে 

বৈষ্ণব পদাবলী MCQ প্রশ্ন-উত্তর সেট ১

উত্তর দেখতে এই লিঙ্কে ক্লিক/টাচ করতে হবে 

চৈতন্য ও চৈতন্য জীবনী কাব্য MCQ প্রশ্ন-উত্তর সেট ১

উত্তর দেখতে এই লিঙ্কে ক্লিক/টাচ করতে হবে 

মঙ্গলকাব্য MCQ প্রশ্ন-উত্তর সেট ১

উত্তর দেখতে এই লিঙ্কে ক্লিক-টাচ করতে হবে 

মঙ্গলকাব্য থেকে কিছু গুরুত্বপূর্ণ ছোটপ্রশ্ন সেট ১

প্রশ্নগুলি দেখতে এই লিঙ্কে ক্লিক/টাচ করতে হবে 

অনুবাদ কাব্য গুরুত্বপূর্ণ MCQ প্রশ্ন-উত্তর সেট ১

উত্তর দেখতে এই লিঙ্কে ক্লিক/টাচ করতে হবে 

ইসলামীয় ধারা MCQ প্রশ্ন-উত্তর সেট ১

উত্তর দেখতে এই লিঙ্কে ক্লিক/টাচ করতে হবে 

শাক্ত পদাবলি MCQ প্রশ্ন-উত্তর সেট ১

উত্তর দেখতে এই লিঙ্কে ক্লিক/টাচ করতে হবে

…… এখানে নিয়মিত প্রশ্ন-উত্তর প্রদান করা হবে। সব নোট দেখতে ও আপডেট পেতে সাবস্ক্রাইব করুন শিক্ষালয় ওয়েবসাইট। 

একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণির সব বিষয়ের সিলেবাস ও নম্বর বিভাজন দেখতে এই লিঙ্কে ক্লিক/টাচ করতে হবে 

শিক্ষালয় ওয়েবসাইটের কিছু গুরুত্বপূর্ণ লিঙ্ক নিম্নে প্রদান করা হলোঃ

শিক্ষালয় ওয়েবসাইটের সকল প্রকার নোট, সাজেশন, প্রশ্নপত্র ও মক টেষ্টের সুবিধা গ্রহণ করতে নিম্নের ছবিতে ক্লিক/টাচ করে বিষদ তথ্য জেনে নাওঃ 

paid courses

 

You cannot copy content of this page

Need Help?