একাদশ শ্রেণি বাংলা মধ্যযুগে বাংলার সমাজ ও সাহিত্য

একাদশ শ্রেণি বাংলা মধ্যযুগে বাংলার সমাজ ও সাহিত্য

একাদশ শ্রেণি বাংলা মধ্যযুগে বাংলার সমাজ ও সাহিত্য থেকে এখানে বিবিধ নোট প্রদান করা হলো। শিক্ষার্থীরা নির্দিষ্ট অপশনে টাচ বা ক্লিক করে নোটগুলি দেখতে পারবে।

শিক্ষালয় ওয়েবসাইটের সকল প্রকার আপডেট লাভ করতে মোবাইল স্ক্রিনের বা’দিকের নিম্নের অংশে থাকা বেল আইকনটিতে (🔔) টাচ করে শিক্ষালয় ওয়েবসাইটের নোটিফিকেশন অন করে রাখুন।

একাদশ শ্রেণি বাংলা মধ্যযুগে বাংলার সমাজ ও সাহিত্যঃ 

মধ্যযুগে বাংলার সমাজ ও সাহিত্য (শ্রীকৃষ্ণকীর্তন পর্যন্ত)গুরুত্বপূর্ণ কিছু MCQ প্রশ্নের উত্তরঃ

১) সাহিত্যের ইতিহাসে ‘অন্ধকারময় যুগ’ হল- ত্রয়োদশ-চতুর্দশ শতাব্দী

২) ‘মধ্যযুগ’ বলতে বোঝায়- পঞ্চদশ থেকে অষ্টাদশ শতাব্দী

৩) ‘চৈতন্য পর্ব’ নামে অভিহিত- ষোড়শ শতাব্দী

৪) কবি ভারতচন্দ্রের মৃত্যু হয়- ১৭৬০খ্রিঃ

৫) বাংলা সাহিত্যের ‘যুগসন্ধিক্ষণ’ হল- ১৭৬০-১৮০০খ্রিঃ

৬) হিন্দু কবিদের ভাষায় হুসেন শাহ ছিলেন- নৃপতিতিলক

৭) ‘আর্যাসপ্তশতী’ নামক সংস্কৃত কাব্যটির রচয়িতা- গোবর্ধন আচার্য

৮) ইফ্‌তিকারুদ্দিন বিন বখ্‌তিয়ার খিলজির বাংলাদেশ আক্রমণকালে রাজা ছিলেন- লক্ষ্ণণ সেন

৯) বাংলাদেশে তুর্কি আক্রমণ হয়- ১২০৩ খ্রিঃ

১০) বাংলা সাহিত্যের ইতিহাসে ত্রয়োদশ-চতুর্দশ শতাব্দীকে বলা হয়- অন্ধকারময় যুগ

১১) আলাউদ্দিন হুসেন শাহ বাংলার সিঙ্ঘাসনে বসেন- ১৪৯৩ খ্রিঃ

১২) আদি-মধ্যযুগের প্রাথমিক নিদর্শন হল- শ্রীকৃষ্ণকীর্তন

১৩) শ্রীকৃষ্ণকীর্তনের পুঁথিটি আবিষ্কার করেন- বসন্তরঞ্জন রায় বিদ্বদ্বল্লভ

১৪) শ্রীকৃষ্ণকীর্তন কাব্যের পুঁথিটি আবিষ্কৃত হয়েছিল- ১৯০৯ খ্রিঃ

১৫) শ্রীকৃষ্ণকীর্তন কাব্যের পুঁথিটি আবিষ্কৃত হয়- বাঁকুড়া জেলার কাঁকিল্যা গ্রামে

১৬) শ্রীকৃষ্ণকীর্তনের পুঁথিটি প্রকাশিত হয়- বঙ্গীয় সাহিত্য পরিষদ থেকে

১৭) শ্রীকৃষ্ণকীর্তনের পুঁথিটি প্রকাশিত হয়- ১৯১৬ খ্রিঃ

১৮) শ্রীকৃষ্ণকীর্তনের পুঁথিটি প্রকাশিত হয়- বসন্তরঞ্জন রায় বিদ্বদ্বল্লভের সম্পাদনায়

১৯) শ্রীকৃষ্ণকীর্তনের পুঁথিটিতে প্রাপ্ত চিরকূটে নাম পাওয়া যায়- শ্রীকৃষ্ণসন্দর্ভ

২০) শ্রীকৃষ্ণকীর্তন কাব্য রচিত হয়- ১৪৭৩-১৪৮০ খ্রিঃ মধ্যে

২১) শ্রীকৃষ্ণকীর্তন কাব্যটির রচয়িতা- বড়ু চন্ডীদাস

২২) শ্রীকৃষ্ণকীর্তন কাব্যটি যে কটি খন্ডে বিভক্ত- ১৩টি

২৩) শ্রীকৃষ্ণকীর্তন কাব্যের শেষ খন্ডের নাম- রাধাবিরহ

২৪) শ্রীকৃষ্ণকীর্তন কাব্যের প্রধান চরিত্র- কৃষ্ণ

২৫) শ্রীকৃষ্ণকীর্তন কাব্যে যে কাব্যের প্রভাব পরিলক্ষিত হয়- জয়দেবের গীতগোবিন্দ

 

মধ্যযুগে বাংলার সমাজ ও সাহিত্য (অনুবাদ কাব্য)

গুরুত্বপূর্ণ কিছু MCQ প্রশ্নের উত্তরঃ

১) বাংলা ভাষায় ভাগবত অনুবাদ করেছিলেন- মালাধর বসু

২) মালাধর বসুর ভাগবত অনুবাদের নাম ছিল- শ্রীকৃষ্ণবিজয়

৩) মালাধর বসু উপাধি পান- গুণরাজ খাঁ

৪) মালাধর বসুকে গুণরাজ খাঁ উপাধি প্রদান করেছিলেন- রুক্‌নুদ্দিন বরবক্‌ শাহ

৫) চট্টগ্রামের শাসনকর্তা পরাগল খাঁর পুত্রের নাম- ছুটি খাঁ

৬) বাংলা ভাষায় রামায়ণের প্রথম অনুবাদক হলেন- কৃত্তিবাস ওঝা

৭) কৃত্তিবাস ওঝা জন্মগ্রহণ করেছিলেন- নদীয়া জেলার ফুলিয়া গ্রামে

৮) কৃত্তিবাস রচিত রামায়ণ যে নামে পরিচিত- শ্রীরাম পাঁচালী

৯) বাংলায় মহাভারত রচনা শুরু হয়েছিল- আনুমানিক ষোড়শ শতাব্দীতে

১০) ‘পরাগলী মহাভারত’ নামে মহাভারত অনুবাদ করেন- কবীন্দ্র পরমেশ্বর দাস

১১) জৈমিনি মহাভারতের অনুবাদ করেন- শ্রীকর নন্দী

১২) শ্রীকর নন্দী মহাভারতের যে পর্বের বিস্তৃত অনুবাদ করেছিলেন- অশ্বমেধ

১৩) বাংলা ভাষায় মহাভারতের শ্রেষ্ঠ অনুবাদক- কাশীরাম দাস

১৪) কাশীরাম দাসের পিতার নাম ছিল- কমলাকান্ত দাস

১৫) কাশীরাম দাস জন্মগ্রহণ করেছিলেন- বর্ধমানের কাটোয়া অঞ্চলের সিঙ্গি গ্রামে

১৬) কাশীরাম দাস মূল মহাভারতের যে’কটি খন্ড অনুবাদ করেছিলেন- ৪টি পর্ব

১৭) ভাগবতের যে দুটি স্কন্ধ অবলম্বনে ‘শ্রীকৃষ্ণবিজয়’ রচিত হয়- দশম ও একাদশ

১৮) চৈতন্যমঙ্গলের রচয়িতা হলেন- জয়ানন্দ

১৯) ‘শ্রীকৃষ্ণবিজয়’ কাব্যটি রচিত হয়- ১৪৭৩ থেকে ১৪৮০খ্রিঃ মধ্যে

২০) মালাধর বসুর জন্মস্থান হল- বর্ধমানের কুলীন গ্রামে

 

মধ্যযুগে বাংলার সমাজ ও সাহিত্য (মঙ্গলকাব্য)

গুরুত্বপূর্ণ কিছু MCQ প্রশ্নের উত্তরঃ

১) ‘বারোমাস্যা’ কোন শ্রেণির কাব্যধারার বৈশিষ্ট্য?- মঙ্গলকাব্য 

২) মঙ্গলকাব্যে ‘চৌতিশা’ কী?- বর্ণানুক্রকিম চৌত্রিশ অক্ষরে দেবতার স্তব 

৩) মঙ্গলকাব্যগুলির দ্বিতীয় অংশে বর্ণিত হয়েছে- গ্রন্থ উৎপত্তির কারণ  

৪) বাংলা সাহিত্যের সর্বাপেক্ষা প্রাচীনতম মঙ্গলকাব্য হল- মনসামঙ্গল 

৫) মনসামঙ্গলের দেবী হলেন- মনসা 

৬) মনসামঙ্গলের আদি কবি হলেন- হরিদত্ত 

৭) চৈতন্য পরবর্তী যুগের একজন মনসামঙ্গলকার হলেন- কেতকাদাস ক্ষেমানন্দ

৮) মনসামঙ্গল কাব্যগুলির মধ্যে সব থেকে জনপ্রিয়- পদ্মাপুরাণ 

৯) কবি কেতকাদাস ক্ষেমানন্দের সময়কাল হল- সপ্তদশ শতাব্দী 

১০) চন্ডীমঙ্গল কাব্যধারার আদি কবি হলেন- মানিক দত্ত

১১) চন্ডীমঙ্গল কাব্যধারার শ্রেষ্ঠ কবি হলেন- মুকুন্দ চক্রবর্তী

১২) মুকুন্দ চক্রবর্তীর কাব্যটি যে নামে পরিচিত- অভয়ামঙ্গল

১৩) মুকুন্দ চক্রবর্তীর পিতার নাম ছিল- হৃদয় মিশ্র 

১৪) মুকুন্দরাম যার অত্যাচারে বাস্তুভিটা পরিত্যাগ করে মেদিনীপুরে আসেন- মামুদ শরিফ 

১৫) চন্ডীমঙ্গলের আখেটিক খন্ডের নায়ক হলেন- কালকেতু 

১৬) চন্ডীমনঙ্গলের বণিক খন্ডের নায়ক হল- ধনপতি সদাগর 

১৭) ধর্মমঙ্গল কাব্যধারার আদি কবি হলেন- ময়ুরভট্ট 

১৮) ময়ুরভট্টের ধর্মমঙ্গল কাব্যের নাম- হাকন্দপুরাণ

১৯) ধর্মমঙ্গল কাব্যের সর্বশ্রেষ্ঠ কবি হলেন- ঘনরাম চক্রবর্তী 

২০) অষ্টাদশ শতাব্দীতে মঙ্গলকাব্যের অন্যতম শ্রেষ্ঠ কবি হলেন- ভারতচন্দ্র রায়

 

২১) কোন কবি ‘রায়গুণাকর’ উপাধি লাভ করেছিলেন?- ভারতচন্দ্র রায়

২২) ভারতচন্দ্র রায়ের পিতার নাম- নরেন্দ্রনারায়ণ রায় 

২৩) ভারতচন্দ্র কোন রাজার পৃষ্ঠপোষকতা লাভ করেছিলেন?- কৃষ্ণচন্দ্র 

২৪) অন্নদামঙ্গল কাব্যটি বিভক্ত- ৩টি খন্ডে

২৫) বিদ্যাসুন্দর আখ্যানের শ্রেষ্ঠ কবি- ভারতচন্দ্র রায় 

২৬) শিবায়ন কাব্যগুলির মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় যার রচনা- রামেশ্বর ভট্টাচার্য 

২৭) ভারতচন্দ্র রায় জন্মগ্রহণ করেছিলেন- পেঁড়ো গ্রামে 

২৮) অন্নদামঙ্গল কাব্যের তৃতীয় অংশে আছে- মানসিংহের কাহিনি  

২৯)  কাশ্মীরের কনি বিলহ্বনের লেখা সংস্কৃত খন্ডকাব্য হল- চৌর পঞ্চাশিকা 

৩০) ‘সূর্যের পাঁচালি’ গ্রন্থটির রচয়িতা হলেন- দ্বিজ কালিদাস 

…….আরো পড়তে এই লেখাটিতে ক্লিক/টাচ করতে হবে (Click Here to Read More)  

সাহিত্যের ইতিহাসঃ আদি ও মধ্যযুগ থেকে MCQ প্রশ্নের মক টেষ্ট প্রদান করতে নিম্নের লিঙ্কে ক্লিক/টাচ করতে হবে 

sikkhalaya click here

সাহিত্যের ইতিহাস- মধ্যযুগে বাংলার সমাজ ও সাহিত্য (বড়ো প্রশ্ন): 

১) তুর্কি আক্রমণ বাংলা সাহিত্যে কী প্রভাব বিস্তার করেছিল তা আলোচনা করো।

উঃ বখতিয়ার খলজির নেতৃত্বে তুর্কিরা ১২০৩ খ্রিষ্টাব্দে বাংলা অভিযান করে।ফলে বাংলার সামাজিক ও রাষ্ট্রীয় ক্ষেত্রে এক অন্ধকারময়তার সৃষ্টি হয়, যার প্রভাব থেকে সাহিত্য ক্ষেত্রও মুক্ত ছিল না।তাই ১২০৩ থেকে ১৩৫০ খ্রিষ্টাব্দ পর্যন্ত সময়কালকে বাংলা সাহিত্যে অন্ধকারময় যুগ বলে অভিহিত করা হয়ে থাকে।

তুর্কিদের আক্রমণের যে প্রভাব বাংলা সাহিত্যে পরেছিল তা আমাদের আলোচ্য বিষয়-

১)পূর্ববর্তী ধর্মীয় সংকীর্ণতা দূর করে যে বর্গসম্মিলন ঘটেছিল তার প্রভাবে লৌকিক দেবী মনসা, চন্ডী উচ্চ বর্ণের দ্বারা পূজিতা হন।ফলত সৃষ্টি হয় কালজয়ী বিবিধ মনঙ্গলকাব্য।

২)সাধারণ মানুষকে উচ্চবণের মানুষেরা কাছে টেনে নেওয়ায় রামায়ণ, মহাভারত, ভাগবতের অনুবাদ ঘটে বাংলা সাহিত্যে।

৩)বাংলা সাহিত্যে লৌকিকতার প্রচলন ঘটে তুর্কি আক্রমণের পরবর্তি সময়কাল থেকে।

৪)তুর্কি আক্রমণের পরবর্তিকালে যে মিশ্র সংস্কৃতি চর্চার সূত্রপাত ঘটে তারই সার্থক প্রতিফলন দেখা যায় বাউল সঙ্গীতের মধ্যে।

৫)তুর্কি আক্রমণের পরবর্তিকালে বাংলায় মুসলিম শাসকদের পৃষ্ঠপোষকতায় বাঙালি কবিরা বিবিধ হিন্দি ও সংস্কৃত সাহিত্যরে মৌলিক অনুবাদে সচেষ্ট হন, যা বাংলা সাহিত্যকে পরিপুষ্ট করেছে অনেকাংশেই।এই প্রসঙ্গে আমরা উল্লেখ করতে পারি পরাগল খাঁর পৃষ্ঠপোষকতায় কবীন্দ্র পরমেশ্বরের মহাভারত অনুবাদের কথা।

অতএব আলোচনার পরিশেষে বলা যায়, তুর্কি আক্রমণ বাংলার সমাজজীবনে অস্থিরতা সৃষ্টি করলেও, তা বাংলা সাহিত্যে এক ইতিবাচক প্রভাব বিস্তার করেছিল।

 

নিম্নে বাংলা সাহিত্যের চর্যাপদ সম্পর্কে বিষদ আলোচনার ভিডিও প্রদান করা হলোঃ

বাংলা সাহিত্যের ইতিহাস থেকে আরো কিছু গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্নের উত্তরঃ 

শ্রীকৃষ্ণকীর্তণ কাব্য সম্পর্কে আলোচনা করো।

উত্তর জানতে এখানে টাচ/ক্লিক করতে হবে

কৃত্তিবাস ওঝা ও রামায়ণ অনুবাদ সম্পর্কে আলোচনা করো।

উত্তর জানতে এখানে টাচ/ক্লিক করতে হবে

কাশীরাম দাস ও মহাভারত অনুবাদ সম্পর্কে আলোচনা করো।

উত্তর জানতে এখানে টাচ/ক্লিক করতে হবে

শ্রীকৃষ্ণবিজয় কাব্য সম্পর্কে আলোচনা করো।

উত্তর জানতে এখানে টাচ/ক্লিক করতে হবে

মঙ্গলকাব্য থেকে ছোট প্রশ্নের উত্তরের সমাধান।

উত্তর জানতে এখানে টাচ/ক্লিক করতে হবে

মঙ্গলকাব্যের নামকরণ ও বৈশিষ্ট্য আলোচনা করো।

উত্তর জানতে এখানে টাচ/ক্লিক করতে হবে

মনসামঙ্গল কাব্যধারার দুজন বিশিষ্ট কবি সম্পর্কে আলোচনা করো।

উত্তর জানতে এখানে টাচ/ক্লিক করতে হবে

চন্ডীমঙ্গল কাব্যের শ্রেষ্ঠ কবি মুকুন্দরাম চক্রবর্তী সম্পর্কে আলোচনা করো।

উত্তর জানতে এখানে টাচ/ক্লিক করতে হবে

ধর্মমঙ্গল কাব্যের শ্রেষ্ঠ কবি ঘনরাম চক্রবর্তী সম্পর্কে আলোচনা করো।

উত্তর জানতে এখানে টাচ/ক্লিক করতে হবে

বাংলা সাহিত্যে বিদ্যাপতির অন্তর্ভুক্তির কারণ আলোচনা করো।

উত্তর জানতে এখানে টাচ/ক্লিক করতে হবে

বিদ্যাপতির পরিচয় দাও ও তাঁর কবি-প্রতিভা সম্পর্কে আলোচনা করো।

উত্তর জানতে এখানে টাচ/ক্লিক করতে হবে

বৈষ্ণব পদ-সাহিত্যে চন্ডীদাসের অবদান আলোচনা করো।

উত্তর জানতে এখানে টাচ/ক্লিক করতে হবে

বৈষ্ণব পদকর্তা জ্ঞানদাসের কবিপ্রতিভার পরিচয় দাও।

উত্তর জানতে এখানে টাচ/ক্লিক করতে হবে

বৈষ্ণব পদ-সাহিত্যে গোবিন্দদাসের অবদান আলোচনা করো।

উত্তর জানতে এখানে টাচ/ক্লিক করতে হবে

বৈষ্ণব পদ-সাহিত্যে বলরাম দাসের অবদান আলোচনা করো।

উত্তর জানতে এখানে টাচ/ক্লিক করতে হবে

বাংলা সাহিত্যে চৈতন্য প্রভাব আলোচনা করো।

উত্তর জানতে এখানে টাচ/ক্লিক করতে হবে

দৌলত কাজির জীবন ও কবিপ্রতিভা সম্পর্কে আলোচনা করো।

উত্তর জানতে এখানে টাচ/ক্লিক করতে হবে

সৈয়দ আলাওলের কবি পরিচিতি ও কবিপ্রতিভার পরিচয় দাও।

উত্তর জানতে এখানে টাচ/ক্লিক করতে হবে

রামপ্রসাদ সেনের কবিপ্রতিভার পরিচয় দাও।

উত্তর জানতে এখানে টাচ/ক্লিক করতে হবে

বাউল কাদের বলা হয়? লালন ফকিরের কবিপ্রতিভার পরিচয় দাও।

উত্তর জানতে এখানে টাচ/ক্লিক করতে হবে

শিক্ষালয় ওয়েবসাইটের কিছু গুরুত্বপূর্ণ লিঙ্ক নিম্নে প্রদান করা হলোঃ

শিক্ষালয়ের সাথে ফেসবুকে যুক্ত হতে নিম্নের ছবিতে ক্লিক/টাচ করতে হবেঃ sikkhalaya

You cannot copy content of this page