নিরুদ্দেশ গল্পের প্রশ্নের উত্তর

নিরুদ্দেশ গল্পের প্রশ্নের উত্তর

শিক্ষালয় ওয়েবসাইটের পক্ষ থেকে নবম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের জন্য নবম শ্রেণি বাংলা বিষয় থেকে ‘নিরুদ্দেশ গল্পের প্রশ্নের উত্তর’ প্রদান করা হলো। শিক্ষার্থীরা এই ‘নিরুদ্দেশ গল্পের প্রশ্নের উত্তর’ অনুশীলনের মাধ্যমে নিরুদ্দেশ গল্পের প্রশ্নের উত্তর লেখার বিষয়ে আরো দক্ষ হয়ে উঠবে। 

শিক্ষালয় ওয়েবসাইটের সকল প্রকার আপডেট লাভ করতে মোবাইল স্ক্রিনের বা’দিকের নিম্নের অংশে থাকা বেল আইকনটিতে (🔔) টাচ করে শিক্ষালয় ওয়েবসাইটের নোটিফিকেশন অন করে রাখুন।

নিরুদ্দেশ গল্পের প্রশ্নের উত্তরঃ 

১) “দিনাটা ভারী বিশ্রী”- দিনটা ‘বিশ্রী’ কেন?
উঃ শীতের দিন হলেও বাদলার কারণে আকাশ মেঘাচ্ছন্ন হয়ে উঠেছে। তাই দিনটা এত ‘বিশ্রী। 

২) “একটা আশ্চর্য ব্যাপার দেখেছ?”- “আশ্চর্য ব্যাপারটি কী ছিল?
উঃ ‘আশ্চর্য ব্যাপারটি ছিল খবরের কাগজে একসঙ্গে সাত- সাতটা নিরুদ্দেশের বিজ্ঞাপন বেরােনাে।

৩) সােমেশ হঠাৎ এসে পড়ায় কথকের কী সুবিধা হয়েছিল?
উঃ সােমেশ হঠাৎ এসে পড়ায় কথকের শীতের মেঘলা দুপুর কাটানাের সুবিধা হয়েছিল। 

৪) কাগজে সাতটি বিজ্ঞাপনের কথা শুনে সােমেশের প্রতিক্রিয়া কী ছিল?
উঃ বিজ্ঞাপনের কথা শুনে সােমেশ কোনাে কৌতূহল না দেখিয়ে উদাসীনভাবে সিগারেটের ধোঁয়া ছাড়তে থাকে। 

৫) ‘আমার হাসি পায়’—কীসে বক্তা হাসি পাওয়ার কথা বলেছেন?
উঃ কথক বলেছেন যে, কাগজে ‘নিরুদ্দেশ’-এর বিজ্ঞাপনগুলাে দেখলে তার হাসি পায়।

৬) ‘নিরুদ্দেশ’ গল্পে ছেলের পীড়াপীড়িতে মা কী করেছিলেন?
উঃ ‘নিরুদ্দেশ’ গল্পে ছেলের পীড়াপীড়িতে মা লুকোনাে পুঁজি থেকে টাকা বের করে তাকে দিয়েছিলেন।

৭) ‘নিরুদ্দেশ’ গল্পে বাবা তার থিয়েটার-দেখতে যাওয়া ছেলে ফিরলে কী করবেন বলেছেন?
উঃ ‘নিরুদ্দেশ’ গল্পে বাবা তার থিয়েটার দেখে ফেরা ছেলেকে বাড়ি থেকে বের করে দেবেন বলেছেন।

৮) ছেলে নিরুদ্দেশে চলে যাওয়ার পরে মার কী অবস্থা হয়?
উঃ ছেলে নিরুদ্দেশে চলে যাওয়ার পরে মা খাওয়া বন্ধ করে দেন এবং বিছানা ছেড়ে ওঠেন না

৯) ‘এতটা আশঙ্কা করেনি’—কী আশঙ্কা না করার কথা বলা হয়েছে?
উঃ দুবছর নিরুদ্দেশে থাকার ফলে তার কিছু পরিবর্তন হলেও জমিদারির কর্মচারীরা তাকে চিনতে পারবে না- এটা শােভন আশঙ্কা করেনি।  

১০) বাবা ছেলের খোঁজ পাওয়ার জন্য কী করতে গিয়েছিলেন?
উঃ বাবা ছেলের খোঁজ পাওয়ার জন্য খবরের কাগজে বিজ্ঞাপন দিতে গিয়েছিলেন। 

১১) বিজ্ঞাপন দেওয়ার জন্য নিরুদ্দিষ্ট ছেলেটির বাবার কাছে কী কী জানতে চাওয়া হয়েছিল?
উঃ বিজ্ঞাপন দেওয়ার জন্য নিরুদ্দিষ্ট ছেলেটির বাবার কাছে স্পেসের পরিমাপ ও বিজ্ঞাপনের কপি এনেছেন কিনা জানতে চাওয়া হয়েছিল।

১২) নিরুদ্দেশের বিজ্ঞাপনে বাবা কী লিখতে চেয়েছিলেন ?
উঃ নিরুদ্দেশের বিজ্ঞাপনে বাবা ছেলেকে ফিরে আসার আবেদন জানাতে চেয়েছিলেন। 

১৩) ছেলের নিরুদ্দেশের বিজ্ঞাপন দেওয়ার সময়ে বাবা সবথেকে বেশি কী নিয়ে চিন্তিত ছিলেন?
উঃ বিজ্ঞাপন দেওয়ার সময়ে নিরুদ্দিষ্ট ছেলেটির মায়ের জলগ্রহণ না করার বিষয়টি নিয়েই তার বাবা সবথেকে বেশি চিন্তিত ছিলেন।

১৪) খবরের কাগজে বিজ্ঞাপন প্রকাশের আগেই কী ঘটনা ঘটল?
উঃ খবরের কাগজে বিজ্ঞাপন প্রকাশের আগেই নিরুদ্দিষ্ট ছেলেটি বাড়িতে ফিরে এসেছিল।

১৫) ছেলেটি বাড়িতে ফিরে এসেছিল কেন?
উঃ ছেলেটি তার গােটাকতক বই নিয়ে যাওয়ার জন্য বাড়িতে ফিরে এসেছিল।

১৬) ‘অত আদর ভালাে নয়!’– কে কাকে বলেছেন?
উঃ  ‘নিরুদ্দেশ’ গল্পে বাড়ি ছেড়ে চলে যাওয়া ও শ্রাবার ফিরে আসা ছেলের মা তার বাবাকে আলােচ্য কথাটি বলেছেন।

১৭) ‘পুরানাে খবরের কাগজের ফাইল যদি উলটে দেখাে’ —কী দেখা যাবে?
উঃ পুরােনাে খবরের কাগজের ফাইল উল্টালে দেখা যাবে, দিনের পর দিন একটি বিশেষ নিরুদ্দেশের বিজ্ঞাপন ধারাবাহিকভাবে বেরিয়েছে।

১৮) “মনে হয় ছাপার লেখায় সত্যি যেন কান পাতলে কাতর আর্তনাদ শোনা যাবে।”– এই আর্তনাদ কীসের জন্য ছিল?
উঃ এই আর্তনাদ ছিল নিরুদ্দিষ্ট ছেলের ফিরে আসার জন্য মায়ের কাতর আবেদন।

১৯) নিরুদ্দিষ্ট ছেলেটির পরিচয়ের কী বিশেষ চিহ্ন ছিল?
উঃ নিরুদ্দিষ্ট ছেলেটির পরিচয়ের বিশেষ চিহ্ন হিসেবে তার ঘাড়ের দিকে ডান কানের কাছে ছিল একটি বড়াে জডুল।

২০) ‘তা মনে কোরাে না’—কী মনে না করার কথা বলা হয়েছে? 
উঃ শােভন নামের ছেলেটি বাড়ি ছেড়েছিল কোনাে অভিমানের বশে, মনটা মনে না করার কথা বলা হয়েছে। 

নিরুদ্দেশ গল্পের বড়ো প্রশ্নের উত্তরঃ  

১) “অধিকাংশ নিরুদ্দেশের বিজ্ঞাপনের ইতিহাসই এই”-উক্তিটি কার? নিরুদ্দেশ সংক্রান্ত বিজ্ঞাপনের ইতিহাস বিবৃত করো। ১+৪=৫

উৎসঃ

আধুনিক ছোটগল্পকার “প্রেমেন্দ্র মিত্র” রচিত “সামনে চড়াই” গল্পসংকলনের অন্তর্গত “নিরুদ্দেশ” গল্প থেকে প্রশ্নোক্ত অংশটি চয়ন করা হয়েছে।

বক্তাঃ

গল্পের কথক সংবাদপত্রের পাতায় সাত-সাতটা নিরুদ্দেশের বিজ্ঞাপন দেখে বন্ধু সোমশকে উদ্দেশ্য করে প্রশ্নোক্ত মন্তব্যটি করেছেন।

বিজ্ঞাপনের ইতিহাসঃ

কথকের বর্ণনা অনুসারে বাবা-মায়ের একমাত্র সন্তান, মায়ের প্রশ্রয়ে থিয়েটার দেখতে গিয়ে বাড়ি ফিরতে দেরি করলে তার পিতার ক্রোধের চূড়ান্ত বহিঃপ্রকাশ ঘটে। তিনি বলেন, “পয়াসাগুলো আমার খোলামকুচি কিনা, তাই নবাবপুত্তুর যা খুশি তাই করছেন। দূর করে দেবো, এবার দূর করে দেবো।”

বাড়ির এই উতপ্ত পরিস্থিতিতে গুণধর পুত্র বাড়ি ফিরলে বাবা তার রাগকে সমলে রাখতে না পেরে বলে ফেলেন, “এমন ছেলের আমার দরকার নেই- বেরিয়ে যা।” অভিমানী ছেলে তার পিতার অন্যান্য আদেশ অমান্য করলেও এই কথাটিকে আপ্তবাক্য বলে স্বীকার করে নিয়ে গৃহত্যাগী হয়।

পুত্রের অবর্তমানে মা আহার-নিদ্রা ত্যাগ করলে বাবা একপ্রকার বাধ্য হয়েই খবরের কাগজে পুত্রের নিরুদ্দেশের খবর ছাপাতে দিয়ে বলেন, “একটু ভালো করে লিখে দেবেন। ওর মা কাল থেকে জলগ্রহণ করেনি।”

কিন্তু সেই বিজ্ঞাপন প্রকাশের পূর্বেই দেখা যায় ছেলে তার কিছু বই নিতে বাড়ি ফিরলে মায়ের অভিমান দূর করতে ও পিতার ভালোবাসার পরিচয় লাভ করে বাড়িতেই থেকে যায়।

মূল্যায়ণঃ

উপরোক্ত কাহিনিটি তার বন্ধু সোমেশকে শুনিয়ে কথক তাই বলে ওঠেন, “অধিকাংশ নিরুদ্দেশের বিজ্ঞাপনের ইতিহাসই এই।”

নবম শ্রেণি বাংলাঃ নিরুদ্দেশ গল্প থেকে আরো কিছু গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্নের উত্তরঃ
‘নিরুদ্দেশ’ গল্প অবলম্বনে শোভন চরিত্র আলোচনা করো। 

“এই বিজ্ঞাপনের পেছনে অনেক সত্যকার ট্র্যাজেডি থাকে”- এই সত্যকার ট্র্যাজেডির পরিচয় দাও।

“তার হাসিটাই বিশ্বাস করিতে আমার প্রবৃত্তি হইল না।”- বক্তা কেন উদ্দিষ্ট ব্যক্তির হাসিটা বিশ্বাস করতে চাননি?

উত্তর জানতে এখানে টাচ/ক্লিক করতে হবে

নবম শ্রেণির বাংলা অধ্যায়ভিত্তিক নোট দেখতে এই লিঙ্কে ক্লিক/টাচ করতে হবে 

You cannot copy content of this page